মাত্র ২ মিনিটে নোয়াখালী ভাষা শেখার উপায়

নোয়াখালী ভাষা খুবই ঐতিহ্যবাহী, মজার ও চমৎকার ভাষা। অনেকেই এই ভাষায় কথা বলতে চান। নোয়াখালীর ভাষা শিখতে চান। কিন্তু পারেন না। চিন্তা নেই। আজকের পোস্টটি আপনার জন্যই। আজকে আমরা খুব সহজেই নোয়াখালীর ভাষা শিখব।

নোয়াখালী ভাষা শেখার উপায়
ছবিঃ eআরকি
নোয়াখালী ভাষা শেখার উপায়
ছবিঃ eআরকি

নোয়াখালী ভাষা শেখার উপায়

নোয়াখাইল্লা ভাষা খুব বেশি কঠিন কোনো ভাষা নয়। অনেকেই বলেন, নোয়াখালীর ভাষা শিখতে চাই। কিন্তু কীভাবে শিখবেন সেই উপায় পান না। একটু চেষ্টা করলেই আপনি এই ভাষায় কথা বলতে পারবেন। আজকে নোয়াখালীর কিছু সাধারণ ভাষা আপনাদের শিখাবো।

প্রথমে আমরা নোয়খালীর কিছু শব্দ শিখবো। একই সাথে শুদ্ধ বাংলায় সেটিকে কি বলে তাও জানবো। এরপর নোয়াখালী ভাষায় কিছু বাক্য শিখবো।

কিছু শব্দের নোয়াখাইল্লা অনুবাদ

  • পানি- হানি
  • পান- হান
  • পেঁপে- হাবিয়া
  • ক্ষেত- হাঁতর
  • উঠান- উঁডাল
  • ভাত- বাত
  • বিছানা- বিছনা
  • আমি- আঁই
  • আমার- আঁর
  • পারি- হারি
  • পারিনা- হারিনা
  • শরীরে- গাত
  • নেকড়া- তেনা
  • সকাল- বেন/বেয়ান
  • সন্ধ্যা- হাঁঞ্জ
  • পরে- হিন্দে
  • আপনি- আন্নে/আম্নে
  • পাইছেন- হাইছেন
  • টাকা- টেঁয়া
  • কেনো- কিল্লাই
  • চেঁচিয়ে- চিল্লাই
  • উঠেন- উঁডেন
  • দেখবো- দেক্কুম
  • তোমারে- তোরে/তোঁয়ারে
  • সরিষার তেল- বালা তেল
  • পেলাম/পেয়েছি- হাইলাম/হাইছি
  • কঞ্চি- চিবা
  • দিয়ে- দি
  • ছেলে- হোলা
  • মেয়ে- মাইয়্যা
  • কাজ- কাম
  • এখন- অন
  • কোথায়- কোনাই
  • যাবেন- যাইবেন
  • এসেছি- আইছি
  • গতকাল- কাইলগা
  • নারিকেল- নাইল
  • সে (মহিলা)- হেতি
  • সে (পুরুষ)- হেতে
  • হাতি- আঁতি
  • তুমি- তুঁই
  • পুকুর- হুইর
  • গর্ত- খাদ
  • উপরে- উরপে
  • ফকির/ভিক্ষুক- হইর
  • চিরুনি- কাঁই
  • ভাতের মাড়- হেন
  • আঁচড়াই- আঁচুড়ি
  • মার্বেল- মারফুল
  • কুকুর – কুত্তা
  • বিড়াল- বিলাই

নোয়াখালীর ভাষায় কিছু বাক্যের অনুবাদ

  • আমি তোমাকে ভালোবাসি- আঁই তোরে বালোবাসি
  • ক্ষেতে ক্ষেতে ঘুরে অনেক মজা পেলাম- হাঁতরে হাঁতরে গুরি অনেক মজা হাইছি
  • তুমি কি পাগল হয়ে গেলে?- তু কি হাগল অই গেছত্তি?
  • বাঁশের কঞ্চি দিয়ে কলম করা যায়- বাঁশের চিবা দি কলফ করন যায়।
  • সে পানিতে পড়ে গিয়েছে- হেতে হানিত হড়ি গেছে
  • আমারা মেঘনা চরের ছেলে- আমরা মেঘনা চরের হোলা
  • আপনি কোথায় যাবেন? – আন্নে কোনাই যাইবেন?
  • আমি গতকাল ঢাকায় এসেছি- আঁই কাইলগা ঢাকা আইছি
  • ঐ খানে যাও আবার ওখান থেকে এখানে আসো- হিয়ানো যা আবার হিয়ান্তন ইয়ানো আয়
  • কাবিলা এখন ঢাকা গিয়ে নাটক করে- কাবিলা অন ঢাকা যাই নাটক করে
  • তোমার এতো বেশি ঢং আমি আর নিতে পারছিনা- তোর এতো বেশি ডং আঁই আর লইতাম হারিয়ের না।
  • সে বাবার বড় ছেলে- হেতে বাপের বড় হোলা
  • পুকুরে মাছ ছাড়া হয়েছে- হুইরে মাছ ছাইড়জে
  • আমি চিরুনি দিয়ে মাথা আঁচড়াই- আঁই কাই দি মাতা আঁচুড়ি
  • তুমি খেয়ে শুয়ে পড়ো- তুই খাই হুতি যা
  • আমরা উঠানে মার্বেল খেলি- আমরা উঁডালো মারফুল খেলি
  • আমি ওকে খুঁজে পাচ্ছিনা- আঁই হেতেরে টোগাই হাইনা।
  • আমি পানি পান করবো /খাবো- আঁই হানি খাইয়ুম
  • আমার এখন মনে পড়ছেনা, পরে বলব- আঁর অন মনে হড়েন্না, হরে কইয়ুম।
  • এখন আমি কি করব?- অন আঁই কিত্তাম?
  • আপনি কি পাগল? – আন্নে কি হাগল নি?
  • ঝাড়ু মার তোমার কপালে- হিঁচা মার তোর কোয়াল বেড়াই
  • আমি পারবো না- আঁই হাইত্তান্ন
  • আমি তাকে চিনিনা- আঁই হেতেরে চিনিনা
  • তিনি ১০ বছর আগে মারা গেছেন- হেতে ১০ বছর আগে মরি গেছে
  • আমার চাচা একজন জেলা- আঁর কাক্কা একজন জাইল্লা

আরো লক্ষ লক্ষ শব্দ ও বাক্য আছে। আমার এই মূহুর্তে মনে পড়ছেনা। আপনারা কোনো শব্দ বা বাক্যের অর্থ নোয়াখালী ভাষায় জানতে চাইলে কমেন্ট করে জানান। আমরা অবশ্যই সেটার উত্তির দেওয়ার চেষ্টা করবো।

নোয়খালীতেও অঞ্চল বেধে শব্দের তারতম্য লক্ষ্য করা যায়। উপরের শব্দগুলো চাটখিল-সোনাইমুড়ী অঞ্চলের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। দু একটা শব্দ অন্য অঞ্চল থেকে আলাদা হতে পারে।

নোয়াখালীর ভাষাকে সংরক্ষণ ও নোয়াখালীকে সবার সামনে তুলে ধরাই আমাদের লক্ষ্য। এক্ষেত্রে কোনো ভুল হলে আমরা ক্ষমাপ্রার্থী। আর অবশ্যই আমাদেরকে ভুলগুলো ধরিয়ে দিবেন। আমরা তা সংশোধন করার চেষ্টা করবো।

নোয়াখালী ভাষা শিখার উপায় নিয়ে আমরা আরো কিছু পোস্ট লিখতে চাই। আপনাদের ভালো সাড়া পেলেই পরবর্তী কাজ শুরু করবো।

Leave a Comment