নোয়াখালীতে মৃত ইতালি প্রবাসীর স্ত্রীও করোনা আক্রান্ত

বর্তমানে করোনা ভাইরাস খুবই ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে। সামাজিক সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েছে। গত ৯ ই এপ্রিল মোরশেদ আলম নামক এক ইতালি প্রবাসী করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যান।

তার শরীরে করোনার উপসর্গ দেখা দিলেও তারা সেটি আইইডিসিআরকে জানায়নি। বিষয়টি গোপন রেখে তিনি স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নেন।

অবশেষে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকায় নেওয়ার পথেই তিনি মারা যান। পরবর্তীতে তার নমুনা সংগ্রহ করে করোনা পজিটিভ পাওয়া যায়।

মৃত ইতালি  প্রবাসী মোরশেদ আলম
মৃত ইতালি প্রবাসী মোরশেদ আলম

বাড়ী ও হাসপাতাল লকডাউন

প্রবাসীর মৃত্যুর ঘটনায় তার বাড়ী ও নোয়াখালী প্রাইম হাসপাতাল লকডাউন করা হয়। লকডাউনের আওতায় বাড়ীর ২৯ সদস্যা রয়েছেন।

প্রবাসীর স্ত্রীর শরীরে করোনা

প্রবাসীর করোনা পজিটিভ হওয়ার পর গত ১৩ ও ১৪ ই এপ্রিল প্রবাসীর স্ত্রীসহ মোট ১৯ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। তার মধ্যে ৮ জনের করোনার রিপোর্ট প্রকাশ করারা হয়েছে।

যেই ৮ জনের রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে তাদের মধ্যে প্রবাসীর ৩ মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীর শরীরে করোনার উপস্থিতি পাওয়া গেছে।

তবে তার শরীরে করোনার কোনো লক্ষণ প্রকাশ পায়নি। তাই তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা মইনুল ইসলামের তত্বাবধানে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। পরবর্তীতে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে নোয়খালী জেলা সদরে স্থানান্তরিত করা হবে।

তিনি ৩ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। তাই তাকে উন্নতমানের খাবার পরিবেশন করা হচ্ছে। করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে ইতিমধ্যেই নোয়াখালী জেলা লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top